প্রথম আলোর নিবন্ধন বাতিল চান চিত্রনায়ক রিয়াজ-তারিন-উর্মিলারাও

দৈনিক প্রথম আলোর নিবন্ধন বাতিল চেয়ে রাজধানীতে একটি মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী, জোট ও সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। দেশের বিরুদ্ধে চক্রান্তকারীদের শাস্তিও দাবি করেন তারা।

বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল) বেলা ১১টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে স্বাধীনতা-সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে আয়োজিত এক মানববন্ধনে শিক্ষক, সাহিত্যিক, কবি, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, শিল্পী, সাংবাদিকসহ অর্ধশতাধিক সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এই দাবি জানান।

শিল্পীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়, চিত্রনায়ক রিয়াজ, অভিনেত্রী উর্মিলা শ্রাবন্তী কর, তারিন জাহান, তানভিন সুইটি, অভিনেতা শাহেদ শরীফ খান, অভিনেত্রী শামীমা তুষ্টি, ডিরেক্টর গিল্ডসের সেক্রেটারি কামরুজ্জামান সাগর ও আনজাম মাসুদ। মানববন্ধনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন, ছিলেন ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির।

নাট্যব্যক্তিত্ব পীযুষ বন্দোপাধ্যায় বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর সময়ে বাসন্তীকে জাল পরিয়ে মিথ্যা তথ্য প্রচার করেছিল তৎকালীন জাতীয় দৈনিক। ঠিক তেমনি স্বাধীনতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে প্রথম আলোর অর্বাচীন সাংবাদিক ষড়যন্ত্রের জাল তৈরি করল। এটি হঠাৎ করেই হয়নি। একজন মফস্বল সাংবাদিক সংবাদ পাঠাল, এটি হঠাৎ করেই পাবলিশড হয়ে গেছে এরকম না। ওই গোষ্ঠি সুপরিকল্পিতভাবে এটি করেছে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, সভ্য বিশ্বে যেকোনো ধরনের সাংবাদিকতার জন্য কিছু মূল নীতি থাকে। কিন্তু, যখন কেউ হলুদ সাংবাদিকতা করেন ও অপতথ্য দেন এবং বিশেষ করে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আঘাত হানেন, তখন সেটা দেশের সার্বভৌমত্বের ওপরেই এক ধরনের আঘাত।

‘ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটি’র সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেন, স্বাধীনতা দিবসে প্রথম আলোর প্রচারিত সংবাদকে শুধু অপসাংবাদিকতা বা হলুদ সাংবাদিকতা বলা যাবে না। এটির মাধ্যমে আঘাত এসেছে আমাদের স্বাধীনতার মর্যাদার ওপরে। স্বাধীনতা দিবসে যেভাবে একটি খবর পরিকল্পিতভাবে তৈরি করা হয়েছে, সেটার নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই। এই খবরটি করা হয়েছে অত্যন্ত উদ্দেশ্যমূলকভাবে। ধারাবাহিকভাবে ষড়যন্ত্র চলছে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে।

বক্তারা প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানকে শাস্তি প্রদান ও পত্রিকাটিকে কালো তালিকাভুক্ত করে এর নিবন্ধন বাতিল করার দাবি জানান।