তের বছরের কিশোরের সন্তানের মা ৩১ বছরের নারী!!

যুক্তরাষ্ট্রে তের বছর বয়সী কিশোরের সন্তানের মা হয়েছেন ৩১ বছর বয়সী এক নারী। সম্প্রতি ওই নারীর স্বীকারোক্তি থেকে এ তথ্য জানা গেছে। ওই নারী জানিয়েছেন, ২০২২ সালে ওই কিশোরের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের আইন অনুসারে, এমন কাজের জন্য ওই নারীর কারাদণ্ড হওয়ার কথা থাকলে তার মাতৃত্ব বিবেচনা করে তাকে অব্যাহতি দিয়েছে আদালত।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবর, ৩১ বছর বয়সী ওই নারীর নাম আন্দ্রেয়া সেরানো। তিনি ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের ফাউন্টেন শহরের অধিবাসী। বর্তমানে ওই কিশোরের বয়স ১৪ বছর। কিছু দিন আগে আন্দ্রেয়া একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন।

এর আগে, ২০২২ সালে বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর আন্দ্রেয়া সেরানোকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার ‍বিরুদ্ধে শিশুর বিশ্বাস ভঙ্গ করে তার ওপর মানসিক ও শারীরিক যৌন নিপীড়ন চালানোর অভিযোগ আনা হয়। পরে আদালতে হাজির হয়ে আন্দ্রেয়ার আইনজীবী আন্দ্রেয়ার পক্ষ থেকে অভিযোগ স্বীকার করে নেন এবং মাতৃত্ব বিবেচনায় তাকে কারাদণ্ড থেকে মুক্তি দেয়ার অরজি পেশ করেন।

তবে আন্দ্রেয়া বিষয়টিতে খুশি হলেও এ রায়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ১৪ বছর বয়সী ওই কিশোরের মা। তিনি বলেছেন, ‘আমার কাছে মনে হচ্ছে, আমার সন্তানের শৈশব কেড়ে নেয়া হলো। এখন এ বয়সে সে একজন বাবায় পরিণত হয়েছে। সে তো স্পষ্ট ভুক্তভোগী এবং এই বিষয়টি মেনে নিয়েই তাকে বাকি জীবন কাটাতে হবে।’

কিশোরের মা আরও বলেছেন, ‘যদি এই মামলায় অভিযুক্ত এবং ভুক্তভোগীর লিঙ্গ বিপরীত হতো তবে অভিযুক্তকে অবশ্যই কঠিন শাস্তি ভোগ করতে হতো। আমার মনে হচ্ছে, যদি আমার ছেলে কোনো কিশোরী হতো এবং অভিযুক্ত প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ হতো তবে শাস্তি অবশ্যই ভিন্ন হতো।’

আন্দ্রেয়ার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ আমলে নেয়া হলে তাকে ১০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড দিতে পারতেন আদালত।